Sale!

কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয়

SKU:

৳ 280.00

সরাসরি কিনতে ফোন করুন:
01751358526

❤️ সবচেয়ে চেয়ে কম দামে Gazivai.com থেকে কিনুন।

♣ ঢাকার বাহিরে থেকে অর্ডার করতে চাইলে ১৫০ টাকা অগ্রিম ডেলিভারি পরিশোধ করে অর্ডার করুন ।

🗣️ অডার নাউ অপশনে ক্লিক করে অডার করে ফেলুন ।

748 in stock

Description

কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয় আজকের আর্টিকেলটিতে আমরা এ সম্পর্কে জানবো  কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয় এবং আপনি কোথা থেকে কম দামে কিভাবে কিনবেন। কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয় কি কি উপকারিতা পাবেন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য আর্টিকেলটিতে ধারাবাহিকভাবে বলা থাকবে। আশা করি এই তথ্যগুলো আপনার বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করার চেষ্টা করবেন তো চলুন তথ্যগুলো সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয়

কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয়

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের যোনি টাইট করার ক্রিম কিনতে ক্লিক- এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ গোপনাঙ্গ ফর্সা করার ক্রিম কিনতে ক্লিক- এখনই কিনুন

কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয় সময় পাঠকগণ আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটে আপনারা পেয়ে যাবেন বিভিন্ন ধরনের হেলদি প্রোডাক্ট যেমন শিয়া চিয়া কাজুবাদাম. তোকমা দানা, আরো অনেক হেলদি প্রোডাক্ট যা আপনাদের খুবই কম মূল্য অজিনাল প্রডাক্ট এবং খুবি সহজ আমাদের থেকে কিনতে পারবেন। যেকোনো ধরনের হেলদি প্রোডাক্ট কিনতে আমাদের স্কিনে দেওয়া নাম্বারটিতে কল করে অর্ডার করে ফেলুন এক্ষুনি।

কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয়

এর বীজও কিন্তু খুবই উপকারী! কারণ এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, প্রোটিন, জিংক, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, কপার, ফসফরাসের মতো একাধিক উপাদান। ১. কুমড়া বীজে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, জিঙ্ক আর ম্যাগনেসিয়াম যা অস্টিওপোরোসিসের মতো হাড়ের যাবতীয় সমস্যা নিরাময়ে সাহায্য করে।

কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয়

আরো পড়ুনঃ সুলতানি পাওয়ার – ভেজষ শক্তিতে পুরুষত্ব বাড়ান  ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

সাধারণত পাকা মিষ্টি কুমড়ার বিচিই খাওয়ার জন্য উৎকৃষ্ট। মিষ্টি কুমড়ার বিচি সংগ্রহ করে ভালভাবে ধুয়ে শুকনো করে তাওয়া বা ফ্রাই প্যানে টেলে মচমচে করে ভেজে (অবশ্যই তেল ছাড়া) কাচের বোয়ামে সংরক্ষণ করা যায়। প্রতিদিন শুধুমাত্র ভাজা বিচি চিবিয়ে, মিক্সড ফলের সাথে অথবা সালাদে যোগ করে খাওয়া যায়।

অনেক ক্ষেত্রে ব্লেন্ডারে গুড়ো করে বিভিন্ন ভর্তায় মিশিয়ে, স্যুপে মিশিয়ে অথবা সরাসরি ভর্তা বানিয়ে, সবজি রান্নায় ও মিশিয়ে খাওয়া যায় এবং শিশুদের ক্ষেত্রে তাদের খিচুড়ি বা অন্য তরল খাবারে মিশিয়ে বাড়তি পুষ্টি সরবরাহ নিশ্চিত করা যায়।

কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয়

 

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের স্তন – দুধ ছোট টাইট করার ক্রিম কিনতে ক্লিক –  এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ মেয়েদের স্তন – দুধ বড় টাইট করার ক্রিম কিনতে ক্লিক- এখনই কিনুন

মিষ্টি কুমড়ার বিচি কেন এত উপকারী।

1.এটি এন্টি অক্সিডেন্ট এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদানে ভরপুর।

2.কিছু কিছু ক্যান্সার এর ঝুঁকি কমাতে এর ভুমিকা অপরিসীম।

3.প্রোস্টেড এবং ব্লাডারের স্বাস্থ্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

4.এতে (১০০গ্রামে) প্রোটিন আছে ২৯.৮৪ গ্রাম, যা আমরা এক পিস (১০০গ্রাম) মুরগীর মাংসে পেয়ে থাকি। অর্থাৎ উৎকৃষ্ট মানের এবং যথেষ্ট পরিমানের প্রোটিন পেতে কম খরচে এটি একটি সহজলভ্য খাবার।

5. এতে (১০০ গ্রামে) প্রচুর পরিমানে পটাশিয়াম (৭৮৮মি.গ্রা.) আছে যা উচ্চরক্তচাপ এর রুগীদের জন্য রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে খুবই কার্যকরী এবং অন্যান্য ট্রেস এলিমেন্ট ( দেহে খুব অল্প পরিমানে প্রয়োজন হয় কিন্তু অত্যাবশ্যক) অর্থাৎ কিছু ভিটামিন ও খনিজ উপাদান সহ বিশেষ করে প্রচুর ম্যাগনেসিয়ামও (৫৫০ মি.গ্রা.) আছে যা শরীরের ইলেকট্রোলাইট ব্যালেন্স রক্ষায় ভুমিকা রাখে।

6.হার্ট এবং মস্তিষ্ককে সুস্থ রাখতেও এর ভুমিকা অপরিসীম। কারণ এতে (১০০ গ্রামে) গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাটি এসিড পলি আনস্যাচুরেটেড (১৯.৮৫ গ্রাম) এবং মনো আনস্যাচুরেটেড (১৫.৭৩ গ্রাম) ফ্যাটি এসিড আছে যা হার্ট এবং মস্তিষ্কের সুস্থতায় অত্যাবশ্যক। তাছাড়া ও ক্যালসিয়াম সহ অন্যান্য কিছু পুষ্টি উপাদানের শোষনেও ভুমিকা রাখে।

মিষ্টি কুমড়ার বীজ খাওয়ার নিয়ম

সাধারণত পাকা মিষ্টি কুমড়ার বিচিই খাওয়ার জন্য উৎকৃষ্ট। মিষ্টি কুমড়ার বিচি সংগ্রহ করে ভালভাবে ধুয়ে শুকনো করে তাওয়া বা ফ্রাই প্যানে টেলে মচমচে করে ভেজে (অবশ্যই তেল ছাড়া) কাচের বোয়ামে সংরক্ষণ করা যায়। প্রতিদিন শুধুমাত্র ভাজা বিচি চিবিয়ে, মিক্সড ফলের সাথে অথবা সালাদে যোগ করে খাওয়া যায়।

 

মিষ্টি কুমড়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

মিষ্টি কুমড়ায় থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ভিটামিন-ই মানুষের দেহের ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। পাশাপাশি এটি আলঝেইমার রোগের ঝুঁকিও কমায়। এছাড়াও এতে থাকা ভিটামিন-সি দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং সর্দি, কাশি ইত্যাদির মতো রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।

সীমিত পরিমাণে খাওয়া হলেই মিষ্টি কুমড়ার উপকারিতা পাওয়া যায়। এমতাবস্থায় আমরা বলতে পারি মিষ্টি কুমড়া খাওয়ার উপকারিতা এবং অপকারিতা দুটোই থাকতে পারে। নিচে আমরা মিষ্টি কুমড়া খাওয়ার অপকারিতাগুলো বলছি।

আরো পড়ুনঃ ভাজা মশলা মিশ্রিত কাজুবাদাম কিনতে ক্লিক করুন – এখনই কিনুন

আরো পড়ুনঃ কালো ও হলদে দাত ফর্সা করার ঔষধ কিনতে – এখনই কিনুন

যদি রক্তে শর্করার মাত্রা কম থাকে, তবে এর ব্যবহার এড়ানো উচিৎ। এমন পরিস্থিতিতে, অতিরিক্ত সেবন এড়িয়ে চলুন এবং ডায়াবেটিক রোগীরা এটি খাওয়ার সময় রক্তে শর্করার মাত্রা পরীক্ষা করতে থাকুন।

আমরা ইতিমধ্যে উপরে উল্লেখ করেছি যে মিষ্টি কুমড়া ভিটামিন-এ এর একটি ভাল উৎস। এই উপকারী ভিটামিনের পরিমাণ শরীরে অতিরিক্ত হলে গর্ভাবস্থায় সমস্যা এবং অনাগত সন্তানের জন্মগত ত্রুটি দেখা দিতে পারে।

কিছু মানুষের শরীর কুমড়ার প্রতি সংবেদনশীল হতে পারে। যদি তারা এটি গ্রহণ করে তবে কুমড়া থেকে অ্যালার্জি হতে পারে

মিষ্টি কুমড়া বীজের উপকারিতা

মিষ্টি কুমড়া তো আমরা অনেকেই খাই। এটি যেমন সুস্বাদু তেমনি উপকারী। এগুলো জেনেই রাখা হয় খাদ্য তালিকায়। শুধু কুমড়াই নয়, এর বীজও কিন্তু খুবই উপকারী! কারণ এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, প্রোটিন, জিংক, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, কপার, ফসফরাসের মতো একাধিক উপাদান।

কুমড়োর বীজের দাম

মিষ্টি কুমড়ার বিচি’এর মূল্য : 500 gm 600/- টাকা

শুধু স্বাস্থ্যেরই উপকার করে না রূপচর্চাতেও কুমড়ার বীজ অত্যন্ত কার্যকরী!

কুমড়োর বিচির রেসিপি

১০০ গ্রাম কুমড়ার বিচি থেকে ৫৬০ ক্যালরি পাওয়া যায়, তার মানে ক্ষুধা মেটানোর কাজটা ভালোই পারে এ বস্তু। আর সামান্য এই খাবারে পুষ্টিও গিজগিজ করছে। প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদানের ‘পাওয়ার হাউস’ মিষ্টি কুমড়ার বিচিতে আছে ভিটামিন বি, ম্যাগনেশিয়াম, প্রোটিন ও আয়রনের মতো গুরুত্বপূর্ণ সব খাদ্য উপাদান।

ভারতের ডি কে পাবলিশিং হাউসের একটি বই ‘হিলিং ফুডস’-এ বলা হয়েছে, কুমড়ার বিচি (বীজ) ভিটামিন বি, ম্যাগনেশিয়াম, লোহা ও প্রোটিনের ভালো একটি উৎস। বিচিগুলোতে অপরিহার্য ফ্যাটি অ্যাসিড উচ্চমাত্রায় রয়েছে। এই ফ্যাটি অ্যাসিড রক্তে অস্বাস্থ্যকর কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন: titan gel gold price in bangladesh

কুমড়ার বিচির তেল দাম

মিষ্টি কুমড়ার বিচি : এটি খাদ্য তালিকায় সাধারণত থাকে না। কিন্তু যৌন আকাঙ্ক্ষায় অভাব দেখা দিলে এটি নিয়মিত খাওয়া জরুরি। মিষ্টি কুমড়ার বিচিতে আছে এল-ট্রিপটোফান যা দেহে সেরোটনিন নামক হরমোন বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। যৌনস্বাস্থ্য সুষম করতে এটি এক কার্যকর নিউরোট্রান্সমিটার। এই বিচি সালাদ, অন্যান্য খাবার বা সিরিয়ালের সঙ্গে মিলিয়ে খাওয়া যায়।

আরও পড়ুন: ভার্জিন মেয়ে চেনার উপায় ছবি সহ

আরও পড়ুন: সর্দির ট্যাবলেট ১০ টি ভালো ঔষধ

আরও পড়ুন: মাথা ব্যথার ১০ টি ঔষধের নামের তালিকা

 তারা একে এর দীর্ঘস্থায়ী শারীরিক শক্তিদানের ক্ষমতার জন্য খুব মূল্য দিত। আসলে, প্রাচীন মায়া ভাষায় ‘চিয়া’ মানে ‘শক্তি’।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “কুমড়ার বীজ কিভাবে খেতে হয়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like…